LifestyleGhar
Everything Here । Search Your Content । Give your Feedback Us

ব্রণের গর্ত সারাতে কিছু প্রাকৃতিক উপায়(Remove your pimple)

 ব্রণ ও ব্রণের গর্ত অনেকের কাছেই একটি বিশাল সমস্যা। যা আমাদের সৌন্দর্য কে কমিয়ে দেয়। নারী ও পুরুষ উভয়ের হয়ে থাকে। এই নিয়ে আমরা অনেকেই আতঙ্ক। যে কীভাবে এই সমস্যা থেকে সমাধান পাব। তাই আমরা বাইরের অনেক দামী, কমদামী প্রসাধনী ব্যবহার করে থাকি। ফলে এই প্রসাধনী আমাদের ত্বককে আর বেশি ক্ষতি করে।

তাই ব্রণ বা ব্রণের গর্তের দাগ সারাতে ঘরোয়া কিছু প্রাকৃতিক উপায় গুলো আলোচনা করা হলো :

ব্রণ Lemon
১। লেবু :

লেবু সাইট্রিক অ্যাসিডের একটি অন্যতম উৎস। যা আমাদের দেহের ভেতরে মরা কোষ সারিয়ে তুলতে সহায়তা করে। আমাদের যাদের ব্রণ ও ব্রণের দাগ বা গর্ত নিয়ে সম্যাসায় আছি।আমরা যদি প্রতিদিন দুই থেকে তিন গ্লাস লেবুর শরবত পান করি তাহলে আমাদের ত্বকের রঙ হালকা করতে সহায়তা করবে।

২। অ্যালোভেরা জেল:

অ্যালোভেরা জেলের কার্যকারিতার কোনো শেষ নেই বললেই চলে। এই উপাদান ত্বকের নানা রকমের সম্যাসা দূর করতে সহায়তা করে। এখন সুপার শপগুলোতে অ্যালোভেরা পাওয়া যায়, তবে আমরা বাইরে থেকে না নিয়ে ঘরেই অ্যালোভেরা লাগাতে পারি।
অ্যালোভেরা জেলের ব্যবহারের নিয়ম: একটা আস্ত অ্যালোভেরা নিয়ে সে টিকে ছুঁরির সাহায্যে যেকোনো এক দিক থেকে কাটুন। তারপর ভেতরের স্বচ্ছ জ়েলীর মত উপাদান ব্যবহার করুন। আর যতবার খুশি এটি ব্যবহার করতে পারেন। যাতে আপনার বিরক্তিকর ব্রণের গর্ত দূর করতে সহায়তা করবে।

ব্রণ Honey
৩। মধু :

মধু একটি পরিচিত প্রাকৃতিক প্রসাধনী। প্রাচীনকাল থেকেই এটি রূপচর্চায় ব্যবহৃত হচ্ছে। মধু মিষ্টতা খাবার হিসাবেও খুব ভালো। তেমনি এটি শরীরের ওজন কমাতে ও সহায়তা করে। মোট কথা মধু আমাদের ত্বকের ব্রণের দাগ বা গর্ত সারাতে অনেক উপকারী।
৪। টমেটো : টমেটোর বিশেষ গুণাবলী আছে। এটি একটি প্রাকৃতিক ঘরোয়া ব্লিচ বলা হয়ে থাকে। এতে আছে ভিটামিন ও অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট, যা আপনার ব্রণের গর্তকে মিলিয়ে দিতে ও কালো দাগ দূর করতে সহায়তা করবে।

৫। শশার রস:

শশার রস তো আমরা যেকোনো ফেস প্যাকেই ব্যবহার করে থাকি। এছাড়া শুধু শশার রস ও আপনি মুখে লাগিয়ে রাখতে পারেন। এতে আপনার ব্রণের কালো দাগকে হালকা করতে সহায়তা করবে।

৬। কাঁচা হলুদ :

কাঁচা হলুদ ও চালের গুঁড়া ব্রণের জন্য খুবই উপকারী। এই দুটো উপাদান সমপরিমাণের গুঁড়ো নিয়ে অল্প পানি নিয়ে ভালো ভাবে প্যাকটি মিশিয়ে নিন। তারপর এই ফেসটি রাতে ঘুমানোর আগে প্যাকটি লাগান। এরপর ভালো ভাবে ঠান্ডা পানি দিয়ে মুখ ধুয়ে নিন। এই মিশ্রণটি শুধুমাত্র ব্রণ দূর করার কাজ করে না বরং ব্রণের দাগ দূর করতে সহায়তা করে।

৭। পুদিনা পাতার রস:

পুদিনা পাতার রস একটি আয়ুর্বেদিক উপাদান। যার কার্যকারিতা অপরিসীম। আমরা পুদিনা পাতা নিয়ে তারপর ভালভাবে ধুয়ে এই পাতাগুলোর রস করে নিব।এরপর আইস কিউব করে নিয়ে প্রতিদিন এই আইস কিউব আলতোভাবে ব্রণে ঘষুন ১০-১৫ মিনিট এতে আপনার ব্রণের দাগ বা গর্ত সারাতে সহায়তা করবে।

ব্রণ Coffe
৮। কফি:

কফি ব্রণের দাগ দূর করতে সাহায্যে করে। কপি আমাদের ত্বকের একটি উপাদান। যার মাধ্যমে আমাদের ত্বকের উজ্জ্বলতা বাড়াতে সহায়তা করে। তেমনি ব্রণ ও ব্রণের দাগ বা গর্ত দূর করতে সাহায্য করে।
তাহলে জানা যাক কিভাবে আমরা ত্বকে কফি ব্যবহার করবো : প্রথমে যেকোনো একটি কফি নিব,এরপর অ্যালোভেরার জেল ১/২ চামচ পরিমাণমত নিয়ে ভালভাবে এই প্যাকটি মিশিয়ে নিন। আর যাদের শুষ্ক ত্বক তারা মধু বা লিকুইড দুধ নিতে পারেন।
এরপর ১০-১৫ মিনিট অথাৎ প্যাকটি শুকিয়ে যাওয়া পর্যন্ত উপেক্ষা করুন। তারপর ভালভাবে মুখ ধুয়ে ফেলুন এবং যেকোনো ময়েশ্চারাইজার মুখে লাগিয়ে নিন। এতে আপনার ত্বকের ব্রণের দাগ বা গর্ত সারাতে সহায়তা করবে।

৯। বিভিন্ন ফেস প্যাক:

বিভিন্ন ফেস প্যাক আমরা ঘরেই তৈরি করতে পারি। যেমন : বেসন,টকদই, বা কমলালেবুর খোসা শুকিয়ে গুঁড়া তৈরি করে তার সাথে ভালো ভাবে মিশিয়ে নিয়ে মুখে লাগিয়ে নিতে পারেন। তাছাড়া মসুর ডালের গুঁড়া এবং চালের গুঁড়া একসাথে মিশিয়ে নিতে পারেন। এছাড়া শুধু ডিমের সাদা অংশ মুখে আধাঘন্টা মুখে রেখে শুকিয়ে নিন এরপর ভালো ভাবে পানি দিয়ে পরিষ্কার করে নিন।
এই ধরনের ফেস প্যাক আপনার ত্বকের উজ্জ্বলতা বৃদ্ধি করতে সাহায্যে করে। এতে আপনার ত্বকের যেকোনো কালো দাগ বা ব্রণের গর্ত সারাতে সহায়তা করবে।

Ice
১০। বরফ কুচি :

বরফ কুচির ব্যবহারে ও আপনার ব্রণের গর্ত মিশাতে সাহায্যে করে। যেকোনো পাতালা কাপড় বা তুলার সাহায্যে আলতো ভাবে মুখে বরফ কুচি ঘষে নিন।এতে করে আপনার ত্বকের কালো দাগ বা ব্রণ ও ব্রণের গর্ত সারাতে সহায়তা করবে। আর আপনার ত্বকে দিবে এক আরামদায়ক অনুভূতি।

লক্ষ্য রাখুন আপনার নিয়মিত খাবার এবং ঘুমের প্রতি : ব্রণ ও ব্রণের গর্ত সারাতে সবার আগে খেয়াল রাখতে হবে নিয়মিত খাবার এবং ঘুমের প্রতি। আমরা সঠিক সময় খাওয়া-দাওয়া,ঘুম ঠিক মতো করি না। এই জন্য আমাদের ত্বকে নানা রকমের সমস্যা দেখা দেয়। আবার দেখা যায় বাইরে থেকে এসে অনেকেই ভালো ভাবে হাত মুখ পরিষ্কার করি না।এতে করে আমাদের ত্বককে আর বেশি ক্ষতিকর করে তুলে।

তাই, বাইরে থেকে এসে ভালো ভাবে হাত মুখ পরিষ্কার করুন যাতে করে আপনার ত্বকে কোনো ধুলাবালি জমতে না পারে।
আবার আমরা বাইরের তৈলাক্ত খাবার অথাৎ ফাস্ট ফুড খাবার বেশি করে খেয়ে থাকি, যা আমাদের শরীর ও ত্বকে নষ্ট করতে সহায়তা করে। এসকল খাবার এড়িয়ে চলেই ভালো আমাদের ত্বকের জন্য।

আবার দেখা যায় আমাদের পর্যাপ্ত ঘুমের অভাবে ত্বকে অনেক সমস্যা দেখা দেয়। যেমন: ব্রণ ও ব্রণের দাগ বা গর্ত, চোখের নিচে কালো দাগ ইত্যাদি। তাই আমাদের নিজ দায়িত্বে ঘুমিয়ে নিতে হবে পরিমাণমত।
দেখবেন, পার্লারে না দৌড়িয়ে খুব সহজেই আমরা হাতের কাছের উপাদানগুলো কে ব্যবহার করে সহজেই মুক্তি পেতে পাড়ি। আর আমাদের ত্বক হবে ব্রণমুক্তি এবং উজ্জ্বল।

You may also like...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *