শীতকালে গরম নাকি ঠান্ডা পানির গোসল?(Winter Bath)

শীতল পানি দিয়ে শীতকালে গোসল করাটা একটা চ্যালেঞ্জিং ব্যাপার হয়ে যায় অনেকের জন্যে। অনেকেই আবার শীতের তীব্রতার কারনে গরম পানি দিয়ে গোসল করে থাকেন।তবে মাঝামাঝি অনেকেই ভেবে থাকে শীতকালে আসলে কোনটি শরীরের জন্যে ভালো।

গরম পানি গোসল

গরম পানি গোসল।

আপনি যখন গরম পানি দিয়ে গোসল করবেন তখন সেটি আপনার ত্বকের কিছু ফলিকন নস্ট করে দেয়, মানে আস্তে আস্তে নস্ট হয়ে যায়। এছাড়া যখন গরম পানি মাথায় ঢালা হয় তখন সেটি আমাদের মস্তিষ্কের উপরে খুব প্রভাব বা চাপ ফেলে।

তাছাড়া এটি আমাদের মাথার ত্বক এবং চুলের গোড়ালির জন্যে খুব ক্ষতিকর।যার কারনে মাথায় গরম পানি দিয়ে গোসল করলে অনেকেরই Hair Fall বা চুল পড়ার সমস্যাটি দেখা দেয়।এটা আমাদের স্বাস্থের জন্যে খুবই ক্ষতিকারক একটা ব্যাপার। তাই ডাক্তাররা সবসময় আমাদের সাজেস্ট করেন গরম পানি দিয়ে একান্রই গোসল করতে হলে মাথায় ঢালা যাবেনা। শুধু মাত্র পুরো শরীরে হালকা গরম পানি এবং মাথায় ঠান্ডা পানি ঢালতে হবে। এতে আমার চুল এবং মস্তিষ্ক ভালো থাকবে।

এছাড়াও এই পানি দিয়ে গোসল করার কিছু সমস্যা

  •  এছাড়া অতিরিক্ত গরম পানি ব্যবহার করলে মুখে Pimple বা ব্রণ হয়ে থাকে।
  • এসিডিটিতে সমস্যা থাকা মানুষদের এই পানিতে গোসল করতে চিকিৎসকেরা নিষেধ করে থাকেন।
  •  বিশেষ ভাবে হার্টে যাদের সমস্যা তাদেরকেও ডাক্তাররা Hot Water দিয়ে গোসল করতে বাধা দিয়ে থাকেন।কেননা তাদের এর মাধ্যমে কার্ডিও ভ্যাসকুলারে সমস্যা দেখা দিতে পারে।
  • মানসিক ভাবে যারা বিষন্যতায় ভুগছেন তাদের জন্যেও কিন্তু Hot Water দিয়ে গোসল করার বিধিনিষেধ রয়েছে।

ঠান্ডা পানি গোসল

ঠান্ডা পানি দিয়ে গোসল।

শীতের দিনে আমরা অনেকেই মনে করে থাকি যে অনেক ঠান্ডা পানি দিয়ে গোসল করা আমাদের জন্যে ভালো।তবে এটি একদম ভুল একটি ধারনা। কেননা শীতের সময়ে অতিরিক্ত Cold Water দিয়ে গোসল করার কারনে আমাদের সর্দি,কাশি,টন্সিল ছাড়া জ্বর হওয়ার সম্ভাবনা থাকে।

তাই শীতের সময়ে অতিরিক্ত ঠান্ডা পানি দিয়ে গোসল করা মোটেও স্বাস্থ্যের জন্যে ভালো না। তাছাড়া যাদের ডায়েবেটিক্স আছে তাদের জন্যে এটি খুব যুকিপূর্ন। কেননা অতিরিক্ত টান্ডা পানি দিয়ে গোসলের কারনে শরীরে গ্লুকোজের পরিমান বেড়ে যেতে পারে।

  • এছাড়াও ঠান্ডা পানি দিয়ে গোসল করার কিছু সমস্যা :
    ঠান্ডা পানি গোসলের কারনে শরীরের তাপমাত্রা কমিয়ে দেয়। এতে শরীরের শুক্ষ টিস্যু ক্ষতিগ্রস্থ হয়।
  •  নার্ভে সমস্যা দেখা দিতে পারে।
  • বাতের রোগ,ব্যথা যাদের তাদের জন্যে ঠান্ডা পানির গোসল একদমই উচিৎ না।

তাহলে কোন পানি দিয়ে গোসল করবেন?

অবশ্যই আমাদের প্রত্যেকদিন গোসল করতে হয়। তাই আমরা একদম Normal Water দিয়ে গোসল করবো। একদম Normal Water দিয়ে গোসল করলে আমাদের শরীরের তাপমাত্রা ঠিক থাকবে।

রোগ-বালাই হওয়ার সম্ভাবনা কম থাকবে। আমরা গরমের দিনে ঠান্ডাপানি দিয়ে গোসল করতে স্বাচ্ছন্দবোধ করি। আবার শীতের দিনে গরম পানি দিয়ে। কিন্তু শরীরের ভালোর জন্যে আমাদের সব ঋতুতেই Normal Water দিয়ে গোসল করা দরকার।

কিভাবে নরমাল পানি তৈরী করবেন?

নরমাল পানি যেহেতু আমাদের শরীর,ত্বক সবকিছুর জন্যে ভালো তাই আমরা এই পানি দিয়েই গোসল করবো। শীতের দিনে আমরা যেভাবে নরমাল পানি তৈরী করবো।

প্রথমে আমরা একটা পাতিলে কিছু পানি গরম করে নিবো,ভালোভাবে গরম করে নিতে হবে। তারপর আমরা যার যার সুবিধামত টিউবওয়েল বা টেপের পানি দিয়ে বালতিতে গরম পানির সাথে Cold Water মিশিয়ে নিবো। পানি মিশিয়ে হাত দিয়ে দেখে নিতে হবে।পানির তাপমাত্রা কমিয়ে নরমাল হয়ে গেলেই এই পানি দিয়ে গোসল করতে হবে।এটি আমাদের ত্বক এবং স্বাস্থ্য দুটিকেই ভালো রাখবে।

Leave a Comment