আর্টিকেল রাইটিং করে ইনকাম করুন।(Earn money from Article Writing)

আর্টিকেল রাইটিং একটি প্রফেশন। যেটা আমরা অনেকেই জানিনা। আমরা চাইলেই এই প্রফেশনটাকে ভালো একটি ক্যারিয়ার হিসেবে নিতে পারি। আজকে দেখব কিভাবে একজন আর্টিকেল রাইটার হওয়া যায়। আর্টিকেল রাইটার হওয়ার জন্য বিশেষ কিছু জানার প্রয়োজন নেই। শুধু প্রয়োজন কিছু সৃজনশীল বিষয়ের উপর অভিজ্ঞতা। প্রথমে জেনে নিব আর্টিকেল বা কনটেন্ট রাইটিং কি এবং এটি কিভাবে কাজ করে।

আর্টিকেল রাইটিং বলতে বোঝানো হয় ব্লগিং করা তাঁর লেখালেখি করা। আমরা অনেকেই জানি বিভিন্ন ধরনের ব্লগ ওয়েবসাইট চালানো হয়ে থাকে। সেগুলোতে যে ধরনের আর্টিকেল দেয়া হয় সেটাই মূলত একজন আর্টিকেল রাইটারের কাজ। যেকোনো ধরনের ব্লগ কিংবা ওয়ার্ডপ্রেস ওয়েবসাইট কে সম্পূর্ণ করতে বিশেষ কিছু আর্টিকেল এর প্রয়োজন হয়। সে আর্টিকেলগুলো যারা লিখে থাকে তারাই মূলত আর্টিকেল বা কনটেন্ট রাইটার। কন্টেন্ট রাইটিং এর জন্য বিভিন্ন ধরনের টপিক রয়েছে তারমধ্যে বিশেষ কিছু টপিক হল Technology,fashion,lifestyle,product review আরো অনেক।

মূলত এ বিষয়গুলোর উপরে কনটেন্ট লিখা হয়।

আর্টিকেল রাইটিং

কোথায় কনটেন্ট লিখবেন?

একজন প্রফেশনাল কনটেন্ট রাইটার হওয়ার জন্য আপনাকে যে বিষয়গুলো করতে হবে। সেগুলো হচ্ছে, প্রথমে আপনাকে একটি portfolio বানিয়ে নিতে হবে। এবং সেখানে বিভিন্ন ধরনের টপিকের ওপর এ আপনাকে আর্টিকেল লিখতে হবে।

এছাড়া আপনি চাইলে ফেইসবুক পেইজ এর মধ্যে সেগুলো পাবলিশ করতে পারেন। তবে সেক্ষেত্রে আপনি একটি ওয়েবসাইট বানিয়ে নিতে পারেন বা একটি ব্লগিং সাইট খুলে ফেলতে পারেন। সেখানে আপনার আর্টিকেলগুলো পাবলিশ করে রাখুন। যখন কেউ আপনাকে একজন আর্টিকেল রাইটার হিসেবে নিতে আসবে। তখন আপনি আপনার পোর্টফোলিওতে দেখিয়ে দেবেন এবং সে যদি আপনার লেখাগুলোতে ইন্টারেস্টেড হয় তাহলে অবশ্যই আপনার সাথে কাজ করবে। আবার আপনি চাইলে বিভিন্ন ধরনের মার্কেটপ্লেসে কাজ করতে পারেন। একজন ফ্রিল্যান্সার হিসেবে আমরা অনেকেই জানি fiver.com freelancing.com এরকম বিভিন্ন ওয়েবসাইটে অনেক কনটেন্ট রাইটার রয়েছে, যাদেরকে অনেকেই তাদের নিজস্ব ওয়েবসাইট ব্লগ কিংবা প্রতিষ্ঠানের জন্য আর্টিকেল রাইটার হিসেবে নিয়ে থাকে।

তাই আপনি পোর্টফলিও টি খুব সুন্দর ভাবে গুছিয়ে লিখুন। তবে এটা ঠিক প্রথম অবস্থায় অনেকেই নতুন কাউকে দিয়ে কাজ করাতে চায় না। সে ক্ষেত্রে আপনার কাজের উপরে আপনার কনটেন্ট এর উপরে বেশি ফোকাস দিতে হবে। যাতে করে যে কেউ আপনার কনটেন্ট গুলো পছন্দ করে।

কন্টেন্ট রাইটিং

কি ধরনের কন্টেন্ট গুরুত্বপূর্ণ?

একজন কনটেন্ট রাইটার হিসাবে সব ধরনের কনটেন্ট রাইটিং আপনার জানা প্রয়োজন। তবে অবশ্যই একটি নির্দিষ্ট কনটেন্ট এর উপরে আপনি বেশি ফোকাস দিবেন। এতে করে সে বিষয়টির ওপর আপনি বেশি ভালোভাবে জানতে বুঝতে পারবেন। আপনি যখন একটি বিষয়ের উপরে খুব ভালোভাবে আয়ত্ত করতে পারবেন,তখন সে বিষয়টি উপরে আপনি ভাল আর্টিকেল লিখতে পারবেন। এবং আপনি যত ভাল আর্টিকেল এবং কনটেন্ট রাইটিং করতে পারবেন বিভিন্ন ব্লগার বা প্রতিষ্ঠানের মালিক আপনাকে ততটা ভালোভাবে তাদের কোম্পানির জন্য অফার করবে।

তাই যেকোনো একটি বিষয়ের উপরে আপনাকে ভালোভাবে জানতে হবে শিখতে হবে বুঝতে হবে। উপরে বলা হয়েছে টেকনোলজি, ফ্যাশন,লাইফ স্টাইল, প্রডাক্ট রিভিউ, এই ধরনের কনটেন্ট রাইটিং বিভিন্ন ধরনের ব্লগ ওয়েবসাইট কাজ করা হয়। সে ক্ষেত্রে এসব কনটেন্ট এর যেকোনো একটি থেকে আপনি কাজ শুরু করতে পারেন। এবং যে কোন একটি নির্দিষ্ট টপিক এর উপরে আপনি ভালভাবে রিচার্জ করতে পারেন।

Article Writing

কিভাবে আপনি আর্টিকেল রাইটিং শুরু করবেন?

প্রথমে আপনাকে কিছু বিষয় জেনে নেয়া প্রয়োজন। আপনি যদি কোন নির্দিষ্ট টপিক এর উপরে আর্টিকেল লেখা শুরু করেন। তবে লেখার পূর্বে আপনাকে অবশ্যই সেই ব্যাপারে অনেক কিছু জেনে নিতে হবে।

আপনি বিভিন্ন প্ল্যাটফর্ম থেকে এই বিষয়ের উপরে কিছু তথ্য নিতে পারেন এজন্য ইউটিউব/গুগোল এ ছাড়া অনেক মাধ্যম রয়েছে। এগুলো থেকে আপনি বিভিন্ন তথ্য নিতে পারেন। এরপর আপনি সেটা নিয়ে কিছুক্ষন ভেবে চিন্তে আপনি আপনার লেখা শুরু করতে পারেন। একটি আর্টিকেল 500 থেকে 1000 ওয়ার্ডের মধ্যে সীমাবদ্ধ রাখা যায়।

রাইটিং

কনটেন্ট রাইটিং এর জন্য যে কাজগুলো করা যাবে না।

প্রথমত আপনাকে ইউনিক কন্টেন্ট লিখতে হবে।কখনোই আপনি কপিরাইট কনটেন্ট ব্যবহার করতে পারবেন না। এতে করে আপনার কনটেন্ট কখনোই google-এ সার্চ কন্সোলে আসবেনা। এছাড়া আপনি যদি কোনো ক্লায়েন্টের কাজ করে থাকেন তাহলে অবশ্যই আপনাকে কপিরাইট ফ্রী আর্টিকেল লিখতে হবে।না হলে সে কখনোই আপনাকে পরে কাজ দিবে না।

কনটেন্ট রাইটিং করে কি রকম ইনকাম করা যেতে পারে?

বিষয়টি আসলে আমাদের সবার মনেই রয়েছে যে, আমরা কনটেন্ট রাইটিং করে বা আর্টিকেল লিখে কি পরিমান ইনকাম করতে পারবো। অবশ্যই বলবো সেটা আপনার নিজের দক্ষতার উপর নির্ভর করে। আপনি যত আর্টিকেল লিখতে পারবেন, আপনি তো ভালো ইনকাম করতে পারবেন। সেজন্য আপনাকে একটি নির্দিষ্ট টপিক এর উপরে অনেক ভালো দক্ষ হতে হবে।আপনি যখন অনেক ভালো কন্টেন্ট লিখতে শুরু করবেন, তখন অনেক ভালো ইনকাম করতে পারবেন।এছাড়া আপনি জেনে অবাক হবেন 500 থেকে 1000 ওয়ার্ডের একটা আর্টিকেল 150 থেকে 10 হাজার টাকা পর্যন্ত হয়ে থাকে। তাই অবশ্যই আপনি ভালো কন্টেন্ট লিখতে হবে। তাহলে ভালো ইনকাম করতে পারবেন।

কিছু টুল আর্টিকেল লিখার সময় ব্যবহার করুন।

আমরা অনেকেই আছি যারা আর্টিকেল লেখার সময় গ্রামার মিস্ট্যাক করে ফেলি। সে ক্ষেত্রে আমরা গ্রামার চেঞ্জ করার কিছু টুলস ব্যবহার করে একদম সঠিক আর্টিকেল লিখতে পারি।

এছাড়া আরো কিছু টুলস রয়েছে যেগুলোর সাহায্যে আমরা আমাদের কনটেন্ট ইউনিক এবং কপিরাইট ফ্রি কিনা সেটা চেক করতে পারব। এবং ধীরে ধীরে যখন একটু আর্টিকেল লিখতে থাকবেন তখন বুঝতে পারবেন আমাদের গ্রামারের কোথায় মিস্ট্যাক আছে।

কন্টেন্ট রাইটিং

ওয়েবসাইট বানিয়ে নিজেই লিখুন আর্টিকেল।

আপনি চাইলে নিজেই আপনি একটি ওয়েবসাইট বানিয়ে সেটাতে কনটেন্ট রাইটিং শুরু করতে পারেন। এবং সেটি দিয়ে আপনি সহজেই ইনকাম করতে পারেন। আপনাকে যে বিষয়গুলো মাথায় রাখতে হবে ভালো,

  • ডোমেইন-হোস্টিং দিয়ে একটি ওয়েবসাইট বানান।
  • অথবা ব্লগস্পট থেকে একটি ব্লগ একাউন্ট খুলে নিন।
  •  সাইটটি কাস্টমাইজ করুন।
  •  সেটার প্রয়োজন About, privacy, disclaimer পেজ বানিয়ে নিন।

আপনার বিভিন্ন ধরনের কনটেন্ট গুলো এখানে পাবলিশ করতে থাকুন। তবে অবশ্যই আপনাকে কপিরাইট ফ্রী কনটেন্ট লিখতে হবে। এছাড়া আপনি আপনার ওয়েবসাইটটি কে একটি নির্দিষ্ট টপিকের উপর রাখুন। এবং প্রত্যেক দিন আপনি কন্টেন্ট পাবলিশ করতে থাকুন। যখন আপনার ওয়েবসাইটের মধ্যে 40 থেকে 50 টি কন্টেন্ট হয়ে যাবে তখন ওয়েবসাইটটি গুগল সার্চ কন্সলে সাবমিট করুন। আস্তে আস্তে যখন আপনার কনটেন্ট গুলো গুগল সার্চে চলে আসবে এবং আপনার ওয়েবসাইটটি প্রস্তুত হয়ে যাবে, তখন সেটিকে একটি গুগল এডসেন্স এর সাহায্যে গুগোল অ্যাডসেন্সে এপ্লাই করে দিন।

যদি আপনার কনটেন্ট আর্টিকেলগুলো কপিরাইট ফ্রি এবং ইউনিক হয়ে থাকে তবে কিছুদিনের মধ্যেই আপনার ওয়েবসাইটটি গুগোল অ্যাডসেন্সে মাধ্যমে এর এপ্রোভ হবে। গুগোল অ্যাডসেন্সে আপনার ওয়েবসাইটটি অ্যাপ্রভাল গেলে খুব সহজেই Google Adsense এর সাহায্যে আপনি ইনকাম করতে পারবেন।

4 thoughts on “আর্টিকেল রাইটিং করে ইনকাম করুন।(Earn money from Article Writing)”

  1. আমি একজন নতুন ব্লগার। এই লেখাগুলো পড়ে আমার খুব উপকার হলো। অনেক কিছু জানতে পারলাম, শিখতে পারলাম। এবং অনুপ্রাণিত হলাম এমন সুন্দর উপস্থাপনার জন্য অনেক ধন্যবাদ।

    Reply
  2. আসসালামু আলাইকুম। ভাই, আপনাদের ওয়েবসাইটে কনটেন্ট লিখতে চাই। সুযোগ সুবিধা কেমন জানাবেন। অথবা আপনাদের সাইট থেকে একটি ডুফলো ব্যাক লিংক জেনারেট করতে চাই। কেমন কি জানাবেন। ধন্যবাদ।

    Reply

Leave a Comment